Theme images by kelvinjay. Powered by Blogger.

Breaking News

Banner


Trulli

ভিডিও

জাতীয়

আন্তর্জাতিক

লাইফস্টাইল

TECH ঝলক

Sports ঝলক

বিনোদন ঝলক

» » » » ভোট রাজনীতির উত্তাপ তীব্র থেকে তীব্রতর হতে চলেছে।


শুভাশিস ঘোষ - সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনের দিন যতই এগিয়ে আসছে বাংলা সহ দেশের রাজনৈতিক উত্তাপ ততই তীব্র থেকে তীব্রতর হতে চলেছে। যেখানে অনুমান করা যেতেই পারে আগামী একমাসে এই উত্তাপ পারস্পরিক রাজনৈতিক দলগুলোর নেতানেত্রীদের সম্পর্কে একদম ব‍্যাক্তিগত স্তরে পৌঁছে যাবে। যা নিয়ে নির্বাচন কমিশনের দপ্তরে বিস্তর অভিযোগ জমা পড়লেও তার সুরাহা কতটা হবে তা নিয়ে প্রশ্ন আছে। শুরুটা দেখে মনে হচ্ছে এই নির্বাচনের শেষ দিন পর্যন্ত আমাদের ধৈর্য ধরে রাজনৈতিক দল গুলোর অনেক অশিষ্টতা দেখতে হবে। এপর্যন্ত কাকে কি ভাবে বিঁধতে হবে তার খানিকটা ইঙ্গিত মিলেছে। যেখানে সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেক উল্টো পাল্টা লিখে কিম্বা ছবি পোস্ট করে মানুষের মনে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করে পারস্পরিক সম্পর্কে কাদা ছোড়াছুড়ি চলছে। যেখানে অনুব্রত মণ্ডলের নকুল দানা খাওয়ানোর তথ্য আবার তার পাল্টা নুন দেওয়া হবে যা বিশেষ ভাবে উল্লেখযোগ্য। ওদিকে অভিষেক ব‍্যানার্জির স্ত্রীকে ঘিরে এয়ার পোর্টে কাস্টমস পুলিশের নাটক চলতেই থাকবে। বলা যায় বাঙালি তথা বাঙলার মানুষকে নির্বোধ বানানোর এ এক মস্ত পরিকল্পনা। কি রকম সেটা আসুন তার চুলচেরা বিশ্লেষণ করি। প্রথমতঃ যার স্ত্রী কে নিয়ে এই মুহূর্তে বাজার গরম  তার অর্থাৎ অভিষেক ব‍্যানার্জির স্ত্রীর কোন বক্তব্য কিন্তু  এখনো আমরা পাইনি। একই সঙ্গে এই ঘটনায় মুলতঃ যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করা হচ্ছে সেই কাস্টমসের কোন বিবৃতি এখনো আমরা দেখতে পাইনি। তাছাড়া এই অবৈধ সোনা কেন সিজ করা গেল না সেটারও কোন ব‍্যাখ‍্যা কাস্টমসের তরফে নেই। যাইহোক এখানে এই ঘটনা সম্পর্কে একটাই বক্তব্য,তা হলো যে যে সংস্থার বিরুদ্ধে অর্থাৎ কাস্টমসের ও পুলিশের দুই তরফেই কোন বিবৃতি নেই তখন তাই নিয়ে আসর গরম করতে চাওয়ার অর্থ আমাদের মতো সহজ সরল মানুষগুলোকে চার অক্ষরের গোত্রে ফেলে ভোট লোটার পায়তারা। আরো আছে এতদিন দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সম্পর্কে বলা হতো দেশের মানুষকে দেওয়া প্রতিশ্রুতি পনেরো লক্ষ টাকা কোথায় গেল? এখন আবার কংগ্রেসের রাহুল গান্ধী বলছেন তিনি ক্ষমতায় এলে দেশের ২৫ কোটি মানুষের জন্য বছরে মাথা পিছু বাহাত্তর হাজার টাকা দেবেন। এবং সেটা অনুদান প্রদান হিসেবে। যা নিয়ে সঙ্কিত দেশের অর্থনীতি বিদরা বুঝে উঠতে পারছেন না এই বিপুল পরিমাণ অর্থ কোথা থেকে সংগৃহীত হবে। নাকি নির্বাচনে বাজিমাত করার জন্য একটা বড়সড় গিমিক পলেটিক্স। সুতরাং এরাজ্যের অনুব্রত মণ্ডলের নকুল দানা খাওয়ানোর তথ্য শুনে যারা  ভীমড়ি খাচ্ছেন তারা রাহুলের কথায় কি হার্ট অ্যাটাকে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন কিনা, সেটাই জানতে ইচ্ছে করে। মনে রাখবেন রাজনীতিতে এখন ধূর্তদের প্রাধান্যই বেশি আর এদের সম্মিলিত শক্তি এতটাই যে একশো একুশ কোটি ভারতবাসী এদের কাছে নিত‍্যান্তই নাদান শিশু মাত্র। তাই নকুলদানাকে বিষভেবে মুখে দিতে ভয় পাচ্ছেন কিম্বা রাজনৈতিক পরিমণ্ডলে কুপ্রভাব দেখছেন তাদের জন্য বলবো সাবধান হয়ে যান তা না হলে অনেক বড় লোক ঠকানো খেলায় ফেঁসে যাবেন যেখানে অনুব্রতরা নস‍্যি মাত্র।

«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply