Theme images by kelvinjay. Powered by Blogger.

Breaking News

Banner


Trulli

ভিডিও

জাতীয়

আন্তর্জাতিক

লাইফস্টাইল

TECH ঝলক

Sports ঝলক

বিনোদন ঝলক

» » » জেনে নিন ফোনে কখন কথা বলবেন, কখন বলবেন না।

অফিসে বসের সঙ্গে গুরুত্বপূর্ণ কথা বলছেন। ঠিক এমন সময় আপনার মুঠোফোনের পর্দায় ভেসে উঠলো  বাল্যবন্ধুর নাম। আপনি কলটি কেটে দিলেন। পরক্ষণেই আবার কল। এভাবে চলতে থাকলো চার পাঁচ বার। কিন্তু  কল দেওয়া বন্ধ হচ্ছেনা আপনার বন্ধুর। বারবার কল আসার ফলে বসের বিরক্তি দেখে অবশেষে ফোনটি বন্ধ করে দিতে বাধ্য হলেন আপনি।

ফোন নিয়ে এ রকম ঘটনার মুখোমুখি প্রায়ই হতে হয় অনেককে। তাই কখন কাকে কল করবেন, বা কোন সময় কল করা উচিত নয়  তা জেনে রাখা দরকার।

কাউকে কল করার আগে কিছু বিষয় মাথায় রাখতে পারেন আপনি। এতে আপনি এবং যাকে কল করছেন দুজনই বিব্রতকর পরিস্থিতি এড়াতে পারেন। এক ঝলকে জেনে নিন এমন কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

* গাড়ি, মোটরবাইক বা সাইকেল চালানোর সময় কখনোই ফোনে কথা বলবেন না। এমনকি কানে হেডফোন লাগিয়েও নয়। তা যত গুরুত্বপূর্ণ কথাই হোক না কেন। বেশি প্রয়োজনীয় হলে থেমে কথা বলুন।

* গভীর রাতে অতিজরুরি না হলে নিকটজন কাউকে কল করা উচিত নয়। পরিচিত কেউ বিদেশ থাকলে সে দেশের রাত-দিনের সময় বুঝে কল করা উচিত।

*  অনুমতি না নিয়ে কাউকে ভিডিও কল করা উচিত না।

*  আপনার সঙ্গে কেউ থাকলে তাকে অপেক্ষায় রেখে দীর্ঘ সময় ধরে ফোনে কথা বলা উচিত না।

*  ধর্মীয় স্থান, বিয়েবাড়ি, শোককৃত্য, সিনেমা হল, ডাক্তারের চেম্বার, পেট্রলপাম্পে ফোনে কথা না বলাই ভালো।

*  মুঠোফোনে এমন রিংটোন ব্যবহার করা উচিত নয়, যাতে আশপাশের মানুষ বিরক্ত হয়। অফিস বা কাজের জায়গায় ফোনটি সাইলেন্ট  করে রাখাই  ভালো।

*  কল করার আগে কী বলবেন, তা আগে থেকে ঠিক করে নিন। এতে অল্প সময়ের মধ্যে আপনার প্রয়োজনীয় কথাগুলো শেষ করতে পারবেন।

*  আপনার সঙ্গে কেউ থাকলে তাকে অপেক্ষায় রেখে দীর্ঘ সময় ধরে ফোনে কথা বলা উচিত না।

*  মোবাইলে কথা বলা শেষ করে সুন্দরভাবে বিদায় বলে ফোনের সংযোগ কাটুন। কথা বলার মাঝখানে কল কেটে দেওয়া উচিত না।

*  ব্যক্তিগত কথা অন্য মানুষের সামনে মুঠোফোনে না বলাই ভালো।

*  দুবার কল করার পর অপর প্রান্তে তা না ধরলে আর কল দেওয়া উচিত না। বেশি প্রয়োজন হলে এসএমএস পাঠিয়ে রাখুন।

*  কারও ফোন ধরতে না পারলে, সুবিধামতো সময়ে তাকে কল করুন।


«
Next
Newer Post
»
Previous
Older Post

No comments:

Leave a Reply